মানবিক পুলিশ ইউনিট সিএমপি-শওকত হোসেন

সেবাই ধর্ম সেবাই কর্ম, বাংলাদেশে পুলিশের মত সেবা দিতে পারে এমন দ্বিতীয় কোন সরকারী বা বেসরকারী সংস্থা নাই।যার উদাহারণ নিম্মে-
১)পুলিশ শুধু দিনরাত তাদের ডিউটিই করে না ডিউটির বাইরেও অনেক মানবিক কাজে অংশগ্রহন করে ৷ যেমন ডিউটি শেষ করে রক্তদান কাজে অংশগ্রহন করা , একজন পুলিশ তার ডিউটির পর যখন জনগনের জীবন রক্ষায় নিজের রক্ত দান করতে ব্লাড ব্যাংকের বিছানায় শুয়ে পড়ে তখন তার চোখে সপ্ন কোন অসহায় মানুষ এই রক্তে বেছেঁ যাবে ৷
বাংলাদেশ পুলিশের মানবসেবা মূলক কার্যক্রম গুলো ৭১ এর প্রথম প্রহর থেকে অদ্যবদি পর্যন্ত ভিবিন্ন সময়ে জাতিয় দুর্যোগ কালিন সময়ে ও প্যানডোমিক সিচুয়েশনে পুলিশ কোন শর্ত ছাড়াই দেশের সর্ব্বোচ্ছ বিশেষ ভূমিকা রেখেছে ৷
দেশ ও জনগনের অকৃত্রিম বন্ধু বাংলাদেশ পুলিশ ৷ ভালমন্দ নিয়েই সমাজ , তবে ধানে যেরকম চিটা থাকে তেমনি গুটি কয়েক অসাধু পুলিশের কারনে আমাদের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে ,তবে কারো ব্যাক্তিগত অপরাধের কারনে বাংলাদেশের দুইলক্ষাধিক পুলিশ কে দোষারোপ করা যায় না ৷ তাহলে যারা ভাল কাজ করে তাদের মনেও আঘাত লাগে এবং ভাল কাজের মনোবল ভেঙ্গে যায় ৷
নিজে ভাল কাজ করুন এবং অন্যকেও ভাল কাজ করতে উৎসাহিত করুন ৷ না জেনে শুনে ঢালাও ভাবে যে পুলিশকে আজ গালি দিচ্ছেন সেই পুলিশই আপনার জীবন রক্ষায় তার রক্ত নিয়ে দাড়িয়ে রয়েছে আপনার দরজায় ৷
রক্ত দিন জীবন বাচান , দেশকে ভালবাসুন , দেশের মানুষকে ভালবাসুন,দেশের আইনকে সন্মান করুন তবেই আমরা সম্মিলিতভাবে সবাই মিলে একটি সুন্দর সোনার বাংলাদেশ গড়তে পারবো ৷
দেশ ও জাতির সেবায় এক অপ্রতিদন্ধি নাম বাংলাদেশ পুলিশ

২)একজন মানুষ পা ভেঙ্গে হাড় বেরিয়ে গেছে এমন অবস্থায় রাস্তার পাশে পড়ে আছে অনেকদিন ৷ কেউ দেখেও দেখার নেই — ?

ঘটনাটি নগরীর দামপাড়া নার্সারী মোড় এলাকায় , বেওয়ারিশ বলে কি তার চিকিৎসা হবে না — ?
আমরা মানবিক পুলিশ ইউনিট সিএমপি বিষয়টি জানার পর দ্রুত ব্যাবস্থা গ্রহন করি ৷ নিঃস্ব, অসহায় , বেওয়ারিশ লোকটির চিকিৎসার সম্পুর্ন দায়িত্ব আমরা নেই ৷ লোকটির চিকিৎসা,ঔষধ,পথ্য,খাবার,বস্ত্র,অপারেশন , ক্লীনিং সেবা , সবই আমাদের মানবিক পুলিশ ইউনিট সিএমপি থেকে করা হবে ৷
যার কেউ নেই তার আল্লাহ আছে এই কথাটিকে স্বার্থক ও মর্যাদাপূর্ন রাখতে আমাদের এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ ৷
৩)দীর্ঘদিন আমরা মানবিক পুলিশ ইউনিট সিএমপি দেখাশুনা করে আসা অসহায় বয়স্ক বৃদ্ধা মহিলাটি আর বেছেঁ নেই ৷ কিছুদিন আগে না ফেরার দেশে চলে গিয়েছে ৷
পরপারে স্রষ্ট্রার নিকট আমাদের নামে নালিশ করবে নাকি সুপারিশ করবে তা আমাদের অজানা —?
তবে জীবিত থাকতে তার মাথাগোজার কোন ঠাই ছিলো না এই শহরে ৷
আর কত দীর্ঘশ্বাসে ভারী হবে এই সমাজ ও তথাকথিত শিক্ষিতদের নগরী ৷
দূরথেকে কোন আত্মা বলে যাচ্ছে — ভালথেকো তোমরা তোমাদের নীতি নিয়ে ৷
Share on Facebook

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *