ঢালাও ভাবে পুরা বাহিনীকে দোষারোপ সমাজের অবক্ষয়

 

বিচিত্র এদেশ -দুনীর্তি-সুনীতি ,ভাল-মন্দ, উচু-নিচু,সৎ-অসৎ,জ্ঞানী-মূর্খ ,ছোট-বড়,ভিক্ষু-ধনী সব একাকার। বুঝা খুব কঠিন। তবে এই কথা সত্য, মানব সেবাই স্রষ্টার ভালবাসা ও সন্তুষ্টি এর একমাত্র হাতিয়ার বা সহজ উপায়। যা পুলিশের মধ্যে এখনো অটুটু। হযরত মুহাম্মদ (সা:) মক্কা থেকে মদিনা শরীফে হিজরত করে যখন মদিনা রাষ্ট্র পরিচালনা করতে মদিনার সনদ তৈরী করল।উক্ত সনদে স্পষ্ট ভাবে একটি অনুচ্ছেদ আছে।রাষ্ট্রের কোন নাগরিক বা জনগন এর মধ্য থেকে কেহ, অপরাধ বা পাপ করলে,তার জন্য সেই দায়ী। তার পরিবার,গোষ্ঠী,গোত্র,সমাজ, সংগঠন,ইউনিট,সংস্থা,ধর্ম বা রাষ্ট্রকে দায়ী করা যাবে না। পাপকে ঘৃনা করি, পাপিকে নয়

মিডিয়া একটা আজব চিড়িয়াখানা । পাপিয়া ধরা পরার আগে সে একজন জন নেত্রী ছিল, আর ধরা পড়ার পর সে দেহ ব্যবসায়ী, তার টর্চার সেল, ইয়াবা কারবারি আরো কত কি। শাহেদ ধরা পরার আগে টিভি চ্যানেলের একজন আমন্ত্রিত অতিথি টক শো তে চায়ের কাপে ঝড় তোলা একজন সন্মানীয় ব্যক্তি। আর ধরা পরার পর সে একজন বিখ্যাত প্রতারক শত শত মানুষকে নিঃস্ব করে প্রতারকের গডফাদার , তার নামে ৪৯ টা মামলা আরো কত কি।

ডাঃ সাবরিনারা খারাপ কাজ করলে পুরো ডাক্তার সমাজকে কেউ দোষারোপ করেনা।

সাহেদরা ধরা পড়লে সকল ব্যবসায়ীরা খারাপ হয়ে যায়না।

সেনাবাহিনীর কতিপয় সদস্য দ্বারা বঙ্গবন্ধু ও তাঁর স্বপরিবার হত্যাকান্ড এবং জিয়াউর রহমান হত্যাকান্ড সংঘটিত হলে পুরো বাহিনীর উপর কেউ দোষারোপ করে না,

সেনা ক্যান্টনমেন্টের ভিতরে তনুরা ধর্ষণ ও খুন হলে পুরো বাহিনীকে কেউ দোষারোপ করেনা।

বিডিআর বিদ্রোহে পুরো বাহিনীকে দোষারোপ করে না,

কতিপয়  শিক্ষক কতৃক বলাৎকার বা ধর্ষণের ফলে সকল শিক্ষকরা খারাপ না বা সকলকে খারাপ বলে না,

ক্লাশে যথাযথ পাঠ না দিয়ে বাড়তি ইনকাম করার জন্য টিউশনি বানিজ্য এ সমাজে বৈধ!

কোচিং-এর ফাঁকে ছাত্রীদের যখন যৌন হয়রানি করা হয় তখন সবাই বলে একজনের জন্যে সবাই খারাপ হয়ে যায়না।

কোনো প্রবাসী যখন বিদেশের মাটিতে চুরির দায়ে সাজাপ্রাপ্ত হয় তখন সকল প্রবাসীরা কিন্তু খারাপ হয়ে যায়না, কেউ সবার দিকে আঙ্গুল তুলে গালি দেয়না, এটাই স্বাভাবিক দুই-একজনের অপরাধের জন্য সবাইকে দোষারোপ করা যায়না।

মানব পাচারের দায়ে বিদেশের মাটিতে একজন জনপ্রতিনিধি গ্রেফতার হয়েছে তাই বলে অন্য সকলে খারাপ না,

ত্রাণ চুরির দায়ে কতিপয় জনপ্রতিনিধি বরখাস্ত ও গ্রেফতার তাই বলে সকলেই চোর না,

জনৈক ডিসির খাসকামরা কেলেংকারী মানেই সকল ডিসির চরিত্র খারাপ না,

এভাবে বাংলাদেশের প্রতিটি সেক্টরের বেলায় যখন কেউ খারাপ কিছু করে পাবলিক তখন ওই একক ব্যাক্তিকেই দোষারোপ করে,।

কিন্তু পুলিশের নাম আসলেই গণেশ উল্টে যায়, কয়েক জনের কারণে সকল পুলিশ সদস্যদের বাবা মা গালি খায়!

অনেকেই বলে পুলিশ যেটা করে সেটা নাকি তাদের দায়িত্ব এটার জন্য সরকার বেতন দেয় জনগণের ট্যাক্সে তাদের বেতন হয়,

তাহলে কি বাকী সকল জনগোষ্ঠীর বেতন ডোনাল্ড ট্রাম্প চাচায় নিজে এসে দিয়ে যান?

এদেশের সাধারণ নাগরিক যেভাবে ট্যাক্স দেয় ঠিক সেভাবে পুলিশও ট্যাক্স দেয়।

কিন্তু দয়া করে বলবেন করোনা কালীন নিজেদের বেতনের টাকা থেকে ২৫ কোটি টাকা জনগণের জন্য দেওয়াটা কি পুলিশের দায়িত্ব?

করোনায় মৃত্যু ব্যাক্তির জানাজা, কবর খোঁড়া, মাটি দেওয়া হিন্দুদের সৎকার করা এটাও পুলিশের দায়িত্ব?

আপনার ঘরে বাজার নেই, সেখানে খাবার নিয়ে যাওয়া কি পুলিশের দায়িত্ব?

করোনা থেকে বাঁচানোর জন্য প্লাজমা দেওয়া কি পুলিশের দায়িত্ব?

আপনার বৃদ্ধ মাকে রাস্তায় ফেলে গেলেন সেখান থেকে তুলে আশ্রয় দেওয়া পুলিশের দায়িত্ব?

করোনা কালে ডাক্তারকে বাসা থেকে হাসপাতালে পুলিশের পরিবহন দ্বারা পৌঁছে দেয়া কি পুলিশের দায়িত্ব?

বাংলাদেশের কোন আইনে পুলিশকে এসব করার জন্য বলা হয়েছে? মানবতা এখানে নিরব!

বাংলাদেশের সকল সরকারী বেসরকারী সেক্টরে কর্মঘন্টা আট ঘন্টা, এর বেশি শ্রম দিলে তাকে অতিরিক্ত পে করা হয়, কিন্তু পুলিশ সে দৈনিক সর্ব নিম্ন ১২ ঘন্টা ডিউটি করে!এজন্য তাকে বাড়তি ডিউটির জন্য আলাদা কোন ভাতা দেয়া হয় না।

স্রষ্টার সকল সৃষ্টি ভালো খারাপ মিলেমিশে রয়েছে।

সকল পুলিশ সদস্য ভালো না, আবার সকলেই খারাপ না। সকল সমাজে সকল সেক্টর সবাই ভালো না আবার সবাই খারাপ ও না।

পুলিশ হচ্ছে সমাজের দর্পন, রাষ্ট্রের মুখপাত্র। সমাজ ভালো হলে পুলিশ ও ভালো হতে বাধ্য।

রাস্তায় ট্রাফিক সদস্য ত্রুটিপুর্ন ডকুমেন্টের কারনে যদি আপনাকে আটকায়, মামলা দেয়ার জন্য তৎপর হয় তখন আপনি কি করেন? চেষ্টা করেন কোন পুলিশ বন্ধু(!)কে দিয়ে ফোন করাতে কিংবা ঐ ট্রাফিক সদস্যের হাতে পাঁচশত টাকা ধরিয়ে দিতে(!),তখন ৯৯% লোক অপরাধ করে বসে, দোষ যায় পুলিশের গাঁটে। আপনি তো একজন সচেতন দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে বলেন না, ঠিক আছে মামলা দেন, জরিমানা করেন, আমি পরিশোধ করবো! বরং সবসময় এই চেষ্টায় থাকেন কি করে তাকে হেনস্তা করা যায়!

পরিবর্তন আপনার মাধ্যমে শুরু হোক, পুলিশ না হয় খারাপ!

পুলিশে চাকরি করা মানুষগুলোকে শুধু মোটা ইউনিফর্মের ভিতরে একজন রোবট যতদিন ভাববেন ততদিন পরিবর্তন আসবে না, ওদেরও একটি রক্তমাংসের শরীর আছে ওই শরীরে ভিতরে একটি মন আছে তাদের দুঃখ কষ্ট আছে , একথা যদি অনুভব করতে না পারেন তবে আপনার পুলিশ আপনার মতো হবে না। বাংলাদেশে না শুধু পৃথিবীর কোন দেশে ১০০% ভাগ সৎ,যোগ্য ও দক্ষ কোন সেক্টর বা ডিপাটর্মেন পাবেন বলে আমার মনে হয় না।

পরিশেষে ভালো থাকুন নিরাপদে থাকুন, আপনি পুলিশের না হলেও পুলিশ আপনার থাকবে। জনতাই পুলিশ,পুলিশ জনতার। সবার উপর মানুষ সত্য তাহার উপরে নাই।

Share on Facebook

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *