কাশ্মীরি সাংবাদিক আসিফ সুলতান

হাত শেকল বন্দী, মুখে দাঁড়ি, মাথায় টুপি, চিনতে পারছেন? ইনি কাশ্মীরি সাংবাদিক আসিফ সুলতান
দীর্ঘ ৭০০ দিন (২ বছর) জেল বন্দী। অপরাধ কাশ্মীরের মুল সমস্যা গুলোকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরা।এই রকম অজস্র মানুষ সন্দেহের বশে জেলে বন্দী।

এবার কাশ্মীরে গ্রেপ্তার করা হলো একটি অনলাইন পোর্টালের বার্তা সম্পাদককে। ধৃত ওই সাংবাদিকের নাম কাজী শিবলী।  গত শনিবার কাশ্মীর উপত্যকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।জানা গেছে, কাশ্মীরে বাড়তি আধাসেনা মোতায়েন নিয়ে টুইটারে ফাঁস করেছিলেন ওই সাংবাদিক। তারপরেই আরও কয়েকটি টুইটের পরে তাঁকে ডেকে জবাব তলব করা হয়। কিন্তু জবাবে খুশি না-হয়ে পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করে। এদিকে সাংবাদিক গ্রেপ্তারের ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে উপত্যকায়। সংবাদমাধ্যম এর স্বাধীনতা নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। সম্প্রতি আসিফ সুলতান নামে আরও এক সাংবাদিকে গ্রেফতার, উপত্যকার দু’টি বড় সংবাদপত্রে সরকারি বিজ্ঞাপন বন্ধ করা নিয়েও ইতিমধ্যেই জলঘোলার হয়।

সম্প্রতি আসিফ সুলতান নামে আরও এক সাংবাদিকে গ্রেফতার করেছে কাশ্মীর পুলিশ। গত ফেব্রুয়ারি মাসে উপত্যকার দু’টি বড় সংবাদপত্রে সরকারি বিজ্ঞাপনও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু, সরকারি ভাবে তার কোনও কারণ ব্যাখ্যা করা হয়নি।২০১৮ সালের মে মাস থেকে কাশ্মীরে বিদেশি সাংবাদিকদের গতিবিধির উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ হয়েছে। বিদেশমন্ত্রকের অনুমতি ছাড়া কোনও বিদেশি সাংবাদিক কাশ্মীরে কাজ করতে পারবেন না।

 ফলে কাশ্মীরে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা ফের প্রশ্নের মুখে পড়েছে। ফ্রিকাজিশিবলি হ্যাশট্যাগ দিয়ে তার মুক্তির জন্য টুইটারে প্রচার শুরু করেছেন স্থানীয়দের একাংশ। সাম্প্রতিক অস্থিরতার সময়ে কাশ্মীরে সংবাদমাধ্যমকে নিশানা করা নিয়ে বারবার সমালোচনায় মুখে পড়েছে সরকার। ফেব্রুয়ারি মাসে উপত্যকার দু’টি বড় সংবাদপত্রে সরকারি বিজ্ঞাপন বন্ধ করে দেওয়া হয়। সরকারি ভাবে তার কোনও কারণ জানানো হয়নি।

আসুন তাদের জন্য দোয়া করি নির্দোষ বন্দী রা যেন কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে, পরিবারের সাথে বাকী জীবন অতিবাহিত করতে পারে।

( আমিন)

Share on Facebook

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *